বাবা নিয়ে উক্তি

বাবাকে জানাই শ্রদ্ধা ভালোবাসা। সবার বাবা সুস্থ থাকুন। সকলেই দীর্ঘ জীবন লাভ করুক।  বাবা সন্তানের মনে স্বপ্নের বীজ বোনেন। বাবা সন্তানের স্বপ্নদ্রষ্টা। সন্তান বাবার ঋণ কখনো পরিশোধ করতেও পারে না। বাবার সঙ্গে এক অবিচ্ছেদ্য বন্ধনে জড়িয়ে থাকে সন্তানের জীবন।দু-একটা ব্যতিক্রম ছাড়া  সব সন্তানের কাছেই তার বাবা সেরা বাবা। পৃথিবীর প্রত্যেক বাবা-মা তার সন্তানকে ভালোবাসেন। সন্তান বিপদে পড়লে উদ্ধারের আপ্রান চেষ্টা করেন। বাবার কাঁধে চড়ে ঘোরা, বাবার হাত ধরে এখানে ওখানে ছুটাছুটির স্মৃতি  বাবাদের প্রতি সন্তানদের শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা রাখে সবসময়। বাবার শাসন সন্তানের জীবনকে বাস্তবতার মুখোমুখী হতে শিক্ষা দেয়।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক  প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা

বাবা হওয়া সত্যিই আনন্দের। আর সন্তানের কাছ থেকে বাবা ডাক শোনার চেয়ে সুন্দর কিছু নেই। কিশোরী মেয়েদের বাবা হওয়াটা সবসময় সহজ না কিন্তু তাদের সঙ্গে সময় কাটানো সবসময়ই সুখের। আমি আমার জীবনে যা কিছু করেছি, এর মধ্যে আমি সবচেয়ে বেশি গর্বিত মালিয়া ও সাশার বাবা হিসেবে। তোমরা চৌকস, তোমরা সুন্দর, কিন্তু সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো তোমরা দয়ালু, বিচক্ষণ ও অনুভূতিপ্রবণ।’

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান

আমার পিতা একজন ফল বিক্রেতা ছিলেন। আর্থিক স্বচ্ছলতা ছিল না। মাঝে মাঝে তরকারির পরিবর্তে তরমুজ দিয়ে রুটি খেতে হতো। বাবা-মায়ের দ্বীন-ইসলামের প্রতি টান ছিল।

অভিনেত্রী মৌসুমী হামিদ

‘আব্বু সবসময় আমাকে উৎসাহ দিয়েছেন। আব্বু সবসময় একটি শিক্ষা দিয়েছেন- তোমার যা আছে তাতে সুখী থেকো।’

হলিউড মডেল প্যারিস জ্যাকসন

‘বাবা মাইকেল জ্যাকসনের একটা সিদ্ধান্ত খুব আনন্দ দিত। ছেলেমেয়েদের নিয়ে বাইরে বেরুলে পাপারাজ্জি ও ভক্তদের উটকো ঝামেলা এড়াতে তাদের নেকাব বা পর্দা পরিয়ে নিতেন। এতে তারা বাড়তি যে সুবিধা পেতেন, বাবার সঙ্গে বাইরে বেরুলে সাধারণ মানুষের মতো ঘুরে বেড়াতে পারতেন। তাদের কেউই চিনত না। বাবা হিসেবে তিনি ছিলেন অসাধারণ। চমৎকার রান্নার হাত ছিল। সময়-সুযোগ হলেই রান্না করতেন আমাদের জন্য। পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে খুবই পছন্দ করতেন। যখন তিনি আমাদের সঙ্গে সময় কাটাতেন তখন মনেই হতো না তিনি এতবড় সেলিব্রেটি ছিলেন।’

বিশ্বসেরা ফুটবলার লিওনেল মেসি

‘পিতৃত্বকে দারুণ উপভোগ করি। বাবা হওয়াটা আমার মানসিক বিকাশের পূর্ণতা দিয়েছে। আমি বুঝতে পারি যে, ফুটবলের বাইরেও একটা জীবন আছে। সেই জীবনটা অনেক সুন্দর। পিতৃত্ব আমাকে পরিণত করেছে।’

ব্রায়ান লারা

‘আমি যা, পুরোটাই বাবার অবদান।’

শচীন টেন্ডুলকার

‘আমার জীবনের সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরণা ছিলেন বাবা।’

অভিনেতা অপূর্ব

‘বাবা সব সময় একসঙ্গে থাকতে ভালোবাসেন। আমিও ঠিক তাই পছন্দ করি।’

অভিনেত্রী ও সাংসদ  নুসরাত জাহান

‘বাবা তুমি আমায় মনুষ্যত্ব শিখিয়েছো। মানুষের মতো মানুষ করে তুলেছো। সবসময় তোমার শেখানো নীতি ও আদর্শ মেনেই চলব। সব মেয়েই যেন এমন বাবা পান।’

ববিতা

‘আব্বা আমার জীবনের আদর্শ। আব্বা আমাদেরকে সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে বাসায় ফেরার কথা বলতেন। আমার জীবনের সাফল্যের মূলমন্ত্র আব্বার কাছ থেকেই পাওয়া। এই যে আমি এত পরিপাটি থাকি, গুছিয়ে থাকার চেষ্টা করি, এটা আব্বার কাছ থেকেই পাওয়া।’

তারিন জাহান

‘বাবার সততাকে আদর্শ মেনে নিয়ে পথ চলার চেষ্টা করি।’

সাদিকা পারভিন পপি

‘আব্বুর কারণেই সাহস পেয়েছি।’

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া

‘বাবার অভাব পৃথিবীর কোনো কিছুই পূরণ করতে পারবে না।’

গঞ্জালো হিগুয়াইন

‘পিতৃত্বের স্বাদ পাবার মুহূর্তটা বলে বোঝানোর মতো নয়। সবকিছুই তখন অর্থহীন হয়ে যাবে।’  লিওনেল মেসি৩৯ বলেন, ‘সন্তানরা জীবনের পথে নতুন করে আমাকে চলতে শিখিয়েছে।’

মার্ক টুয়েন

‘আমি যখন বছরের বালক তখন মনে হতো আমার বাবা কিচ্ছু জানে না, এই পুরনোকালের মানুষটার সাথে থাকা অসহ্যকর। কিন্তু আমি যখন একুশে পা দিলাম তখন উপলব্ধি করলাম এই লোকটা কতটা জানে।’

রোনালদো

‘তখন আমার অর্থ-বিত্ত কিছুই ছিল না, কিন্তু আমার বাবা ছিলেন। আজ আমার সব আছে, কিন্তু পাশে বাবা যে নেই।

হুমায়ুন আহমেদ

এই পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ শিক্ষক নিজের বাবা, যে ছেলে গোটা ছাত্রজীবন তার বাবার সাথে বসে রাতের খাবার খাবে, সে কোনোদিনই নীতি থেকে বিচ্যুত হবে না।

জাস্টিন রিকলেফস

একটি মেয়ের জীবনে বাবার শক্তি অতুলনীয়।

আলিয়া ভাট

আমি রান্নায় খারাপ হওয়ার কারণটি হলো আমার বাবা আমার তৈরি খাবারের সর্বদা প্রশংসা করতেন এবং আমি তাকে বিশ্বাস করতাম।

কেভিন লেমন

কন্যারা যখন বাবার সাথে জড়িত থাকে, তারা আজীবন সেই সম্পর্ক থেকে উপকৃত হয়।

 লেডি গাগা

আমি আমার বাবাকে ভালবাসি। বাবা আমার সব কিছু। আমি আশা করি এমন একজনকে আমি খুঁজে পেতে পারি  যে আমার সাথে আমার  বাবার মতো ভালো ব্যবহার করবে। 

ডেমোক্রিটাস

পিতার আত্মনিয়ন্ত্রণই ছেলেমেয়েদের পক্ষে সর্বশ্রেষ্ঠ উদাহরণ৷

পরিবার.নেট

About পরিবার.নেট

পরিবার বিষয়ক অনলাইন ম্যাগাজিন ‘পরিবার ডটনেট’ এর যাত্রা শুরু ২০১৭ সালে। পরিবার ডটনেট এর উদ্দেশ্য পরিবারকে সময় দান, পরিবারের যত্ন নেয়া, পারস্পরিক বন্ধনকে সুদৃঢ় করা, পারিবারিক পর্যায়েই বহুবিধ সমস্যা সমাধানের মানসিকতা তৈরি করে সমাজকে সুন্দর করার ব্যাপারে সচেতনতা বৃদ্ধি করা। পরিবার ডটনেট চায়- পারিবারিক সম্পর্কগুলো হবে মজবুত, জীবনে বজায় থাকবে সুষ্ঠুতা, ঘরে ঘরে জ্বলবে আশার আলো, শান্তিময় হবে প্রতিটি গৃহ, প্রতিটি পরিবারের সদস্যদের মানবিক মান-মর্যাদা-সুখ নিশ্চিত হবে । আগ্রহী যে কেউ পরিবার ডটনেট এর সাথে সঙ্গতিপূর্ণ যেকোনো বিষয়ে লেখা ছাড়াও পাঠাতে পারেন ছবি, ভিডিও ও কার্টুন। নিজের শখ-স্বপ্ন-অনুভূতি-অভিজ্ঞতা ছড়িয়ে দিতে পারেন সবার মাঝে। কনটেন্টের সাথে আপনার নাম-পরিচয়-ছবিও পাঠাবেন। ইমেইল: poribar.net@gmail.com

View all posts by পরিবার.নেট →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *