ভালো সমাজ তৈরির জন্য চাই ভালো নেতা!

আনিসুর রহমান এরশাদ 

রাজনীতি মানুষের প্রকৃতির একটি প্রয়োজনীয় দিক। রাজনীতি প্রত্যাশিত আচার-আচরণের জন্য নিয়ম, প্রবিধান ও মান নির্ধারণের মাধ্যমে শান্তি প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। রাজনীতি সমস্ত সামাজিক-অর্থনৈতিক ব্যাকগ্রাউন্ড, জাতি এবং জাতিগত উৎস থেকে নাগরিকদের দৈনিক জীবনকে প্রভাবিত করে।

যদি বাংলাদেশের রাজনৈতিক দলগুলো পরিপূর্ণভাবে গণতান্ত্রিক সংস্কৃতির বিকাশ ঘটাতে পারতো, রাজনৈতিক সহিষ্ণুতা দেখাতো, সংযত হতো, গণতান্ত্রিক ভাষায় কথা বলতো, সাংবিধানিক আচার-আচরণ রপ্ত করতো, সহনশীলতা ও সৌজন্যতাবোধ থাকতো; তাহলে রাজনৈতিক সংকট নানা ধরণের মানবিক সংকট কখনো তৈরি করতো না। কিন্তু দুঃখজনকভাবে রাজনৈতিক খেলার মাঠে মানুষের প্রাণ খেলনায় পরিণত হয়েছে। জনগুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন ইস্যু থেকে জনগণের দৃষ্টিকে ভিন্ন দিকে প্রবাহিত করতে নতুন ইস্যু তৈরি করা হচ্ছে, নাটক সাজানো হচ্ছে।

রাজনীতি সমাজের বিভিন্ন দিক, অর্থনৈতিক সুযোগ এবং শিক্ষার সুযোগ, স্বাস্থ্যসেবা এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ সম্পদে প্রভাব বিস্তার করে। একটা ভালো রাজনীতি ভালো নেতা তৈরি করে। আর ভালো নেতা সমাজের জন্য কাজ করেন। একটা ভালো রাজনীতির ফলে দুর্নীতি রোধ করা, সুষ্ঠু নির্বাচন করা সম্ভব হয়। সমাজে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা, বিচারবিভাগকে শক্তিশালী করে তোলা, সাধারণ মানুষের সাথে নেতার সম্পর্ক উন্নয়ন করা এগুলো একমাত্র ভাল রাজনীতির চর্চা দ্বারাই সম্ভব।

কালো টাকা ও পেশী শক্তি, দলীয় কোন্দল, নেতৃত্বের বিরোধ, ক্ষমতার অপব্যাবহার, ধ্বংসাত্মক- সহিংস রাজনৈতিক কর্মসূচি দেশের অপূরণীয় ক্ষতি করে। অস্থিরতা, অসহিষ্ণুতা, অরাজকতা, দ্বন্ধ-বিদ্বেষ, কপটতা, সঙ্কট, ভাবাদর্শের সংঘাত যেন নিত্য নৈমত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। রাজনীতিবিদদের মানসিকতার পরিবর্তন ছাড়া হিংসা বিদ্বেষ ও মিথ্যাচারের চর্চা বন্ধ হবে না।

যেকোনো বিবেচনাতেই- ভাল রাজনীতির ফলে বহির্বিশ্বে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হয়, ভাল সরকার গঠনে সাহায্য করে, প্রশাসনিক কাজ ত্বরান্বিত হয়, ভাল সমাজ গঠনে সুদূরপ্রসারী ভূমিকা পালন করে। তাই মানবিক সমস্যা ও বিবেকহীনতার সমস্যার সমাধান করতে হবে।

ইংল্যান্ড, জার্মান, জাপান ও কোরিয়ায় অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক বিপ্লবের কারণ উন্নত সোশ্যাল ক্যাপিটাল তথা মানবিক উন্নয়ন। মানব-উন্নয়ন ছাড়া অর্থনৈতিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক উন্নয়ন আসে না –এটাই বাস্তবতা। এমন রাজনৈতিক সংস্কৃতির বিকাশ ঘটাতে হবে যাতে মানবিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত ও নিশ্চিত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *