‘অতিরিক্ত ছবি তোলার নেশাকে পেশা হিসেবে নিন’

ছবিকে শব্দহীন জীবন্ত কবিতা বলা যেতে পারে। ফটোগ্রাফীর প্রতি ছেলে-বুড়ো সবারই ব্যাপক আগ্রহ আছে। ইদানিং সেটা আরো বেড়েছে বলা চলে। কম্প্যাক্ট ডিজিটাল ক্যামেরাই বলি আর ডিএসএলআর ক্যামেরাই বলি সহজলভ্য হয়ে যাওয়ায় এখন অনেকের হাতেই কোনো না কোনো ক্যামেরা দেখা যায়। যার এসব নেই, সে হয়তো মোবাইল ক্যামেরা দিয়েই ছবি তুলছে। দুঃখজনক হচ্ছে এদের অনেকেরই আবার পূরোদস্তর ফটোগ্রাফার হতে আগ্রহ নেই, প্রশিক্ষণ নেই। অথচ ক্যামেরা এমন বস্তু যেটার সাথে থিওরিটিকাল ব্যাপার স্যাপারের থেকে প্রাক্টিকাল দিকটাও বেশি জড়িত।

মাঝে মাঝে মনে হয় যারা ফেসবুকে অনেক বেশি ছবি পোস্ট করেন; তারা নেশাটাকে পেশা হিসেবে (পার্টটাইম কিংবা ফুলটাইম) নিতে পারেন। ফ্রেমিং, কম্পজিশন, এক্সপোজার, লাইটিং সম্পর্কে ধারণা ছাড়া উদ্দেশ্যহীনভাবে যারা সেলফি তুলেন আর ফেসবুকে ছবি পোস্ট করেন তাঁদের ছবি তোলার শখ আছে নিশ্চিত| এখন ক্যামেরা এবং লেন্স সম্পর্কে ধারণা নিয়ে একটিু মগজ খাটিয়ে এটি করলে এর ফলাফল ইতিবাচক হবে।

আসলে শৈল্পিক পেশা ফটোগ্রাফি। এমন অনেক পেশা আছে যেখানে গতানুগতিক চাকরি থেকে ভালোভাবে উপার্জন ও সম্মান আদায় করা সম্ভব। এরকমই একটি পেশা হলো ফটোগ্রাফি। এ পেশাতে নিজের দক্ষতার পাশাপাশি শৈল্পিক জ্ঞান থাকা অপরিহার্য। দেশের ফটোগ্রাফি শিল্পের উন্নয়ন এবং বেকার যুবক- যুবতীদের ক্যারিয়ার গড়ার লক্ষ্যে ফটো তোলার নেশায় আক্রান্তদের ফটোগ্রাফি সংক্রান্ত বেসিক জ্ঞান নিয়ে ছবি তোলার আয়োজন অর্থপূর্ণ হতে পারে।

আনিসুর রহমান এরশাদ এর ফেসবুক স্ট্যাটাস থেকে নেয়া

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *