ফেসবুকে প্রতারণার ফাঁদে পা না দেওয়ার পরামর্শ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি সাধারণ ছবি অনেক সময় মানুষের হৃদয়স্পর্শ করে যায়। তবে ছবিই যে প্রতারণার ফাঁদ হতে পারে- এটা হয়তো অনেকের জানা নেই। অনেক সময় এই ধরণের ছবি বা পোস্ট অসৎ উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হয়। মানুষের মনে সহানুভূতিকে পুঁজি করে একটি চক্র হাতিয়ে নেয় হাজার হাজার ডলার। আবার অনেক সময় ছবি, পোস্ট বা লিঙ্কে ক্লিক করলেই ঘটতে পারে বিপত্তি।

এমনই একটি ছবি সোমবার রাত থেকে ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। ‘খাটের ওপর শুয়ে আছে একজন বৃদ্ধ। সামনে একটি চিরকুট হাতে ছোট্ট একটি মেয়ে। দেখে মনে হবে মেয়েটি সাহায্যপ্রার্থী। আর ছবিটির সঙ্গে ইনবক্সে দেয়া হচ্ছে একটি মেসেজ, যাতে লেখা আছে, ‘ছবিটি সবাইকে সেন্ড করো। কারণ এ মেয়েটার বাবার অপারেশন হবে। এটি যতবার সেন্ড করা হবে মেয়ের পরিবারকে ততবারই ১ টাকা করে দেবে ফেইসবুক কর্তৃপক্ষ।’

এই মেসেজটি পেয়েছেন আকাশ আহমেদ নামে একজন ফেইসবুক ব্যবহারকারী। তিনি বলেন, গতকাল থেকে এই মেসেজটি আমাকে আমার ৩ জন ফেইসবুক ফ্রেন্ড পাঠিয়েছে। তিনি দুইটি মেসেজের স্কিন শট নিয়ে রাখেন। আর বিরক্ত হয়ে আরেক বন্ধুর মেসেজ ডিলিট করে দেন।

শুধু আকাশ আহমেদ নন। এই মেসেজ পেয়ে অনেক বাংলাদেশি ফেইসবুক ব্যবহারকারী তাদের বন্ধুদের ইনবক্সে তা পাঠাতে শুরু করেন। মঙ্গলবার সকাল থেকে ফেইসবুকে এটি ভাইরাল হয়েছে। অনেকে এই ছবি ও মেসেজটি তাদের ফেইসবুক ওয়ালেও শেয়ার করছেন। এতে আবার কেউ কেউ বিরক্তিও দেখাচ্ছেন।

এ প্রসঙ্গে প্রসঙ্গে আরেকটি ঘটনা উল্লেখ করা যায়-

যুক্তরাষ্ট্রের সেরফিনা নামের ছোট্ট একটি মেয়ে হৃদযন্ত্রের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি হয়। চিকিৎসা চলাকালীন সময় তার বাবা শন মারফি মেয়ের একটি ছবি তুলেছিলেন ব্যক্তিগত প্রয়োজনেই। ছবিটি তিনি পোস্ট করেছিলেন ফেইসবুক এবং অন্য একটি সামাজিক যোগাযোগ ওয়েব সাইটে। ছবিটি পোস্ট করার সময় তিনি কি জানতেন তাঁর মেয়ের ছবিটি দূর্বৃত্তরা ঘৃণ্য উদ্দ্যেশ্যে ব্যবহার করবে।

ছবিটি ফেইসবুকে পোস্ট করার কিছুদিন পর সেরফিনা’র বাবা ফেইসবুকে একটি একাউন্ট খোলার সময় তাঁর নজরে পড়ে বুকে ব্যান্ডেজ বাধা সেরফিনার সেই ছবিটি ফেইসবুকে আলোড়ন তুলেছে। ওই ছবিটি ব্যবহার করে দূর্বৃত্তরা স্পাম ছড়াচ্ছে, লাইক ও মন্তব্য করার জন্য ফেইসবুক ব্যবহারকারীদের অনুরোধ জানাচ্ছে। ছবিটিতে যত লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার বাড়বে ততই দুর্বৃত্তদের বিজ্ঞাপন থেকে আয় বাড়বে। এছাড়া সেরফিনা’র চিকিৎসার কথা বলে সাহায্যও চাওয়া হয়।

প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বলেন, মানুষের আবেগকে কাজে লাগাতে ফেইসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ ওয়েবসাইটে দুর্বৃত্তরা সদা তৎপর। ফেইসবুক লাইক সংগ্রহ করে নিজস্ব সাইটে ভিজিটর বাড়ায় দুর্বৃত্তরা। এছাড়া অনেক সময় ফেইসবুকের ফ্যানপেজ কেনাবেচা চলে। ফ্যানপেজে যত বেশী লাইক থাকে, তার দাম তত বেশী।

এই বিষয়ে সাধারণ ফেইসবুক ব্যবহারকারীদের প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিয়ে বলেন, এ ধরণের গুজব, স্প্যাম বা আপনাকে ট্যাগ করা ছবির বিরুদ্ধে আপনি ফেইসবুক কর্তৃপক্ষকে জানাতে পারেন। ছবিতে ক্লিক করলে নিচের দিকে অপশন নামের একটি ফিচার রয়েছে। ওই অপশন ফিচার থেকে আপনি এ ধরণের ছবির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারবেন।

সাইবার নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা বলেন, ফেইসবুকের বন্ধুদের নানা পোস্ট হয়তো আপনাকে খুশি করছে বা লাইক দিতে বাধ্য করছে। কিন্তু এ পোস্টগুলোর মধ্যে কোনটা যে দুর্বৃত্তদের নকশা করা ম্যালওয়্যার সেটা আপনার জানার কথা নয়। স্প্যাম সমৃদ্ধ কোন পোস্টে ক্লিক করলে ফেইসবুক থেকে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য চুরি হয়ে যেতে পারে। ফেইসবুকে অসংখ্য এরকম পোস্ট রয়েছে যার মধ্যে কোনটিতে ধর্মীয় কোন অনুভূতিকে পুঁজি করে লাইক চাওয়া হচ্ছে, আবার কোনটিতে শিশুদের রুগ্ন-জীর্ণ-শীর্ণ ছবি পোস্ট করে লাইক বা শেয়ার চাওয়া হচ্ছে। এ ধরণের পোস্টকে শেয়ার বা লাইক না দিয়ে সরাসরি এড়িয়ে যাওয়া পরামর্শ নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা।

সেরফিনা’র ছবিটি ফেইসবুকে ৪৩ লক্ষ লাইক পায় এবং ৬১ হাজার শেয়ার হয়। এ ঘটনার পর শন মারফি দুর্বৃত্তদের টেক্কা দিতে ভিন্ন পথে হাঁটেন। মেয়ের ছবিটির জনপ্রিয়তা ভাল কাজে লাগানোর পরিকল্পনা করেন তিনি। ফেইসবুকে তিনি সেরফিনার ছবিটি যাঁরা লাইক করেছেন, তাঁদের কাছে সরাসরি হাসপাতালের উন্নয়নের জন্য সাহায্য করতে অনুরোধ করেন তিনি। তিনি আরও বলেন, সেরফিনা ওপেন হার্ট সার্জারির পর সম্পূর্ণ সুস্থ্য হয়ে উঠেছে।

বিশেষজ্ঞরা বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেক সময় তারকাদের ছবি, কোনো ঘটনা, অসুস্থ বা জখম শিশুদের ছবি পোস্ট করে ‘লাইক’ বা ‘শেয়ার’ করার জন্য বা ‘কমেন্ট’ করার জন্য অনুরোধ করা হয়। এছাড়া দুর্বৃত্তরা সুন্দরী মেয়েদের বিভিন্ন রকম ছবি ব্যবহার করে, ভূয়া একাউন্ট খুলে সেখান থেকে স্প্যাম ছড়ায়। বন্ধুর পোস্ট করা সুন্দরী একটি মেয়ের ছবি বা ভিডিও ফেইসবুক টাইমলাইনে আসার পর সে লিংকটিতে ক্লিক করে বিপদে পড়েননি এমন লোক খুঁজে পাওয়া যাবে বলে মনে হয় না। ওই লাইক দেওয়া ছবিটির যন্ত্রণায় অস্থির বন্ধুরা। এ যন্ত্রণার নাম ফেইসবুক স্প্যাম।

অনেক সময় ফেইসবুক ব্যবহারকারীদের কাছে ছবিতে লাইক দেওয়া, সহজে অর্থ আয় করা, ওজন কমানোর পরামর্শ বা বিস্তারিত জানার জন্য আবেদন আসে। এমনকি ফেইসবুকের মেসেজ অপশনে অনেক সময় অচেনা কারও কাছ থেকে এমনও বার্তা আসে, যাতে বিভিন্ন লিংকে ক্লিক করতে বলা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *