দাঁড়িয়ে পানি পানে শরীরের মারাত্মক ক্ষতি!

আমাদের শরীরের শতকরা পানি ৬০ থেকে ৭০ ভাগ। দেহের কোষ, কলা বা টিস্যু, বিভিন্ন অঙ্গ তথা মস্তিষ্ক, কিডনী, পাকস্থলী, ত্বক, চুল ইত্যাদির যথাযথ কার্যকারীতার জন্য পানি অত্যাবশ্যকীয়। শরীরের সকল প্রকার কার্যাবলী সম্পাদনের জন্য প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করা প্রয়োজন।

আমরা অনেকেই দাঁড়িয়ে পানি পান করি। কিন্তু দাঁড়িয়ে পান করার চেয়ে বসে পানি পান করলে রয়েছে নানা উপকারিতা। বিশেষজ্ঞদের মতানুসারে, দাঁড়িয়ে পানি পান না করে অবশ্যই বসে থেকে পানি পান করা উচিৎ। এটি বৈজ্ঞানিকভাবেও প্রমাণিত। আসুন এই বিষয়ে আজকে জেনে নিই-

দাঁড়িয়ে পানি পান করা হলে তা দ্রুত কোলন বা মলাশয়ে চলে যায়। ফলে পানির প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপকরণ শরীরে শোষিত হয় না। দাঁড়িয়ে পান করলে আরও অনেক স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি তৈরি হতে পারে। এগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ঝুঁকি হচ্ছে হজমজনিত সমস্যা, পেট ব্যথা, কিডনী নষ্ট হয়ে যাওয়া, স্নায়ু উত্তেজনা ইত্যাদি। এছাড়াও দাঁড়িয়ে পানি পান করলে অস্থিসন্ধিতে ফ্লুইড জমে গিয়ে আর্থ্রাইটিসের সৃষ্টি করতে পারে।

দাঁড়িয়ে পানি পানের ফলে পাকস্থলীর ভেতরে থাকা অংশ মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ‘গ্যাস্ট্রো ইসোফেগাল রিফ্লাক্স ডিজিজ’ শরীরে বাসা বাঁধে। সবকিছু চিন্তা করেই আপনাকে বসে বসেই পানি পান করতে হবে। বসে পান করলে অনেক রোগ থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে। বসে বসে পানি পান করার পাশাপাশি অবশ্যই ছোট ছোট চুমুক বা অল্প অল্প করে পান করবেন। দ্রুত পানি পান শরীরের জন্য ক্ষতিকর।

গরমে সুস্থ থাকতে প্রচুর পানি পান করা আবশ্যক। সারাদিন কর্মচঞ্চল থাকার জন্য জাপানিরা সকালবেলা খালি পেটে চার গ্লাস পানি পান করে থাকে। পানি পানের ৩০ মিনিট পর নাস্তা করে। তাই সুস্থ, সবল ও রোগমুক্ত থাকতে যথাযথ নিয়ম মেনে পানি পানের বিকল্প নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *