মুসাফিরের জীবন

জীবনটা মুসাফিরের মতোই !
মুসাফিরের মতো থাকা!
মুসাফিরের মতো কাটে সময়!
জানা নেই এই সফরের শেষ সময়!
অজানা- সফর কতদিন দীর্ঘ হবে!
জন্মে যে সফরের শুরু, মৃত্যুতে সে সফরের শেষ!

এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায়
এক এলাকা থেকে আরেক এলাকায়
বালিয়াটায় জন্ম! হানারচালায় শৈশব!
ঢাকায় কৈশোর থেকে যৌবন!

জীবনটাই যেন মুসাফিরের জীবন!
কখনো তক্তারচালায়! কখনো সাভারে!
জন্ম থেকে শুরু ভ্রমণের সমাপ্তি মৃত্যুতেই!
এর আগে অবস্থানের পরিবর্তন ঘটেই চলছে!

গ্রাম থেকে শহরে! বসবাসে বা কর্মক্ষেত্রে!
কত স্থানান্তর! ঠিকানা বদল! পরিবর্তনের হাওয়া!
কামালিয়া চালা থেকে তামীরুল মিল্লাত!
মিরহাজীরবাগ থেকে শনির আখড়া!

মুসাফিরের বেশে মুসাফিরের জীবন!
মুসলিম মডার্ণ একাডেমীর ভেতর দিয়ে আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজে যাওয়া!
ইব্রাহীমপুর, কচুক্ষেত কিংবা কাফরুলে!
টঙ্গী কলেজ গেইট কিংবা মুদাফা থেকে মহাখালী!
বি এ এফ শাহীন কলেজ ঢাকা!

অস্থায়ী জীবনে কী আর স্থায়ী আবাসস্থল থাকে!
কখনো শ্যামলী! কখনো কল্যাণপুর!
কখনো উত্তরা! কখনো ঝিগাতলা!
মুসাফিরের জীবনে কী আর স্থায়ী বসবাস আসে!

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়! শহীদ সালাম বরকত হল!
কখনো মোহাম্মদপুর! কখনো পল্টন! কখনো মানিকনগর!
কখনো মতিঝিল! কখনো মিরপুর! কখনো মগবাজার! কখনো পিআইবি!
জীবনের প্রয়োজনে! জীবিকার প্রয়োজনে! শিক্ষার প্রয়োজনে!

কয়েকদিনের এক পথিক যেন!
কোনো এক সাধারণ পথচারীর মতোই এই চলা!
চলনে মুসাফির! বলনে মুসাফির!
কর্মে মুসাফির! চিন্তায় মুসাফির!

কী বিচিত্র! বিচিত্র জীবনের স্বপ্ন!
পরের ঘরকেই নিজের ঘর মনে করা!
মুসাফিরের ভাবনায় বিদায়ের পরের জীবন!
নতুন জীবন! চিরস্থায়ী জীবন! স্থায়ী ঠিকানা!
অবধারিত গন্তব্য! অবশ্যম্ভাবী পথ! অনিবার্য পরিণতি!

 

 

 

About আনিসুর রহমান এরশাদ

শিকড় সন্ধানী লেখক। কৃতজ্ঞচিত্ত। কথায় নয় কাজে বিশ্বাসী। ভেতরের তাগিদ থেকে লেখেন। রক্ত গরম করতে নয়, মাথা ঠাণ্ডা ও হৃদয় নরম করতে লেখেন। লেখালেখি ও সম্পাদনার আগ্রহ থেকেই বিভিন্ন সময়ে পাক্ষিক-মাসিক-ত্রৈমাসিক ম্যাগাজিন, সাময়িকী, সংকলন, আঞ্চলিক পত্রিকা, অনলাইন নিউজ পোর্টাল, ব্লগ ও জাতীয় দৈনিকের সাথে সম্পর্ক। একযুগেরও বেশি সময় ধরে সাংবাদিকতা, গবেষণা, লেখালেখি ও সম্পাদনার সাথে যুক্ত। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগে অনার্স ও মাস্টার্স করেছেন। পড়েছেন মিডিয়া ও জার্নালিজমেও। জন্ম টাঙ্গাইল জেলার সখিপুর থানার হাতীবান্ধা গ্রামে।

View all posts by আনিসুর রহমান এরশাদ →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *