বেলা ফুরাবার আগেই বুঝুন

যেদিন বেলা ফুরিয়ে যাবে,
কালো অন্ধকারে সবকিছু ঢেকে যাবে,
প্রিয়জনের মুখ দেখার আলোর জন্যও-
সেদিন লড়াই-সংগ্রাম করতে হবে।
সবাই বুঝবে সেদিন, সবই বুঝবে!

বাঁশের চেয়ে কঞ্চি বড় হলে-
অস্তিত্বই হুমকির মুখে যায় চলে।
সূর্যের চেয়ে বালি গরম হলে-
স্বাভাবিকতা যায় রসাতলে।

গুণহীনের ব্যর্থ আস্ফালন মূল্যহীন,
বাপের চেয়ে ছেলের তেজ দেখানোও অর্থহীন।
দায়ের চেয়ে আছার লম্বা হলে,
সৌন্দর্য-ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে।

লেজ যদি কুকুরকে নাড়ায়-
নিয়ম-নীতি সব হাড়ায়!
বেলা শেষে ফিরে এসে-
লাভ হয় না আফসোসে!

থাকতে শত উপেক্ষা আর লাখো অবহেলা,
হারালে কবরে দেয় ফুলের মালা!
প্রাণহীন থাকবেতো লাশকে ঘিরেই,
প্রাণচঞ্চল হবে প্রাণ আসলে ফিরেই।

পথের নেড়ি কুকুর পেলে ঘর-
শান্তি-স্বচ্ছতা সব হবে পগারপার।
তাই বেলা ফুরাবার আগে-
আস হাসি-উল্লাসে মাতি আনন্দ-ত্যাগে।

আস্থা নেই তো, উন্নতিও নেই।
আস্থা নেই তো, সেবাও নেই।
তাই এসো আস্থা ফেরাই,
বিশ্বাস নিয়েই এগিয়ে যাই।

সময়কাল: ০৮-০৯-২০২১

About আনিসুর রহমান এরশাদ

শিকড় সন্ধানী লেখক। কৃতজ্ঞচিত্ত। কথায় নয় কাজে বিশ্বাসী। ভেতরের তাগিদ থেকে লেখেন। রক্ত গরম করতে নয়, মাথা ঠাণ্ডা ও হৃদয় নরম করতে লেখেন। লেখালেখি ও সম্পাদনার আগ্রহ থেকেই বিভিন্ন সময়ে পাক্ষিক-মাসিক-ত্রৈমাসিক ম্যাগাজিন, সাময়িকী, সংকলন, আঞ্চলিক পত্রিকা, অনলাইন নিউজ পোর্টাল, ব্লগ ও জাতীয় দৈনিকের সাথে সম্পর্ক। একযুগেরও বেশি সময় ধরে সাংবাদিকতা, গবেষণা, লেখালেখি ও সম্পাদনার সাথে যুক্ত। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগে অনার্স ও মাস্টার্স করেছেন। পড়েছেন মিডিয়া ও জার্নালিজমেও। জন্ম টাঙ্গাইল জেলার সখিপুর থানার হাতীবান্ধা গ্রামে।

View all posts by আনিসুর রহমান এরশাদ →

Leave a Reply

Your email address will not be published.