মিষ্টি খাবার বেশি খেলে কী করবেন

বন্ধুর বাসার দাওয়াতে গেছেন। টেবিল ভরা পায়েস, ফিরনি, মিষ্টি, কেক রাখা আছে। আড্ডার ফাকে ফাকে টপাটপ একের পর এক মিষ্টি মুখে নিয়েছেন। সেই সঙ্গে অন্য খাবারগুলো তো আছেই। খাওয়া শেষে মনে পড়লো গত মাসেই ডাক্তার মিষ্টি খাবার খেতে বারণ করেছিলেন। সেই সঙ্গে ওজনটাও বেড়েছে অনেক। এবার উপায়? অনেক সময় শখ করে কিংবা লোভে পড়ে অতিরিক্ত মিষ্টি খাবার খাওয়া হয়ে যায়। একবারে বেশি মিষ্টি খাবার খেয়ে ফেলা একেবারেই উচিত নয়। আর যদি খেয়েই ফেলেন তাহলে কিছু উপায়ে রক্তের চিনির পরিমাণ কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। জেনে নিন উপায়গুলো।

ব্যায়াম করুন: বেশ কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে যে মানসিক চাপ বেশি থাকলে মিষ্টি খাবার বেশি খাওয়া হয়। যখন মিষ্টি খাবার বেশি খাওয়া হবে তখন বুঝে নিন কোনো কিছু নিয়ে মানসিক চাপে আছেন। তাই মানসিক চাপ কমাতে ব্যায়াম করুন, হাঁটুন অথবা সাতার কাটুন। শরীর চর্চা করলে মানসিক চাপ কমে যায়। অতিরিক্ত মিষ্টি খাবার খাওয়ার প্রবণতা কমে।

নিজের জন্য রাঁধুন: কোনো বেলা বেশি মিষ্টি খাবার খেয়ে ফেললে পরের বেলায় ফাস্ট ফুড কিংবা প্রসেসড খাবার খাওয়ার প্রবণতা বেড়ে যায়। তাই পরের বেলার খাবার নিজেই তৈরি করুন। কম তেলে কার্বোহাইড্রেট ছাড়া খাবার তৈরি করে খেলে ক্যালরির পরিমাণ কিছুটা নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

প্রচুর ফাইবার এবং প্রোটিন খান: ফাইবার এবং প্রোটিন হজম হতে বেশ সময় লাগে। তাই কোনো বেলা বেশি মিষ্টি খাবার খাওয়া হয়ে গেলে পরের বেলা বেশি ফাইবার এবং প্রোটিন খান। দীর্ঘ হজম প্রক্রিয়ায় রক্তের চিনির পরিমাণ স্বাভাবিক হবে। সেই সঙ্গে অতিরিক্ত খাবার খেয়ে ফেলার সম্ভাবনাও থাকবে না।

সূত্র:  টাইমস অব ইন্ডিয়া ও চ্যানেল আই অনলাইন

About পরিবার.নেট

পরিবার বিষয়ক অনলাইন ম্যাগাজিন ‘পরিবার ডটনেট’ এর যাত্রা শুরু ২০১৭ সালে। পরিবার ডটনেট এর উদ্দেশ্য পরিবারকে সময় দান, পরিবারের যত্ন নেয়া, পারস্পরিক বন্ধনকে সুদৃঢ় করা, পারিবারিক পর্যায়েই বহুবিধ সমস্যা সমাধানের মানসিকতা তৈরি করে সমাজকে সুন্দর করার ব্যাপারে সচেতনতা বৃদ্ধি করা। পরিবার ডটনেট চায়- পারিবারিক সম্পর্কগুলো হবে মজবুত, জীবনে বজায় থাকবে সুষ্ঠুতা, ঘরে ঘরে জ্বলবে আশার আলো, শান্তিময় হবে প্রতিটি গৃহ, প্রতিটি পরিবারের সদস্যদের মানবিক মান-মর্যাদা-সুখ নিশ্চিত হবে । আগ্রহী যে কেউ পরিবার ডটনেট এর সাথে সঙ্গতিপূর্ণ যেকোনো বিষয়ে লেখা ছাড়াও পাঠাতে পারেন ছবি, ভিডিও ও কার্টুন। নিজের শখ-স্বপ্ন-অনুভূতি-অভিজ্ঞতা ছড়িয়ে দিতে পারেন সবার মাঝে। কনটেন্টের সাথে আপনার নাম-পরিচয়-ছবিও পাঠাবেন। ইমেইল: [email protected]

View all posts by পরিবার.নেট →

Leave a Reply

Your email address will not be published.